Tuesday , October 23 2018

ফেসবুকে করা যাবেনা এই এই কাজগুলি ;ফলাফল ভয়ঙ্কর হতে পারে; জানলে চমকে যাবেন

ফেসবুক থেকে গ্রাহকদের তথ্যচুরি হয়ে যাওয়ার ঘটনা নতুন কিছু নয়। একাধিকবার এরকম অভিযোগ উঠে এসেছে। এরফলে প্রতিবারই জবাবদিহি করতে হয়েছে জুকারবার্গ কে। এতে ফেসবুকের ভাবমূর্তির যে অবনতি ঘটছে তা বলাই বাহুল্য। ফেসবুক প্রোফাইলে প্রত্যেকেরই গোপন এবং ব্যক্তিগত কিছু এমন জিনিস থাকে, খুব স্বভাবিকভাবেই সেগুলি পাবলিক হয়ে গেলে অস্বস্তি বাড়ছে ইউজারদের।

তবে বারবার গ্রাহকদের আর এমনভাবে হতাশ করবেন না ফেসবুক। আর সেই কারণেই এবার কোমর বেঁধে নামছেন জুকারবার্গ। প্রয়োজনে তিনি কড়া হতেও রাজি। ইতিমধ্যে ইউজারদের তথ্যকে সুরক্ষিত করতে কিছু পদক্ষেপ নিচ্ছেন তিনি। সেগুলি হল,







অন্যের যে কোনো তথ্য শেয়ার করা

তথ্য চুরি রুখতে ফেসবুক গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্যের ব্যাপারে আরও কড়া হতে চাইছে। অন্যের পোস্ট শেয়ার করা (বিশেষ করে গ্রুপ থেকে), একই ইভেন্টে যাওয়ার খবর শেয়ার করার মতো বিষয়গুলোর দিকে নজর দেওয়া হয়েছে।

খুব বেশি ব্যক্তিগত তথ্য ডেভেলপারদের কাছে থাকা

ডেভেলপাররা যাতে গ্রাহকদের খুব বেশি ব্যক্তিগত তথ্যে না পান, সেদিকেও লক্ষ রাখা হচ্ছে। এখন থেকে গ্রাহকদের কোনো কোনো ব্যক্তিগত তথ্য জানতে হলে অনুমোদন নিতে হবে বা চুক্তি সই করতে হবে।







থার্ড পার্টি অ্যাপে তথ্য চলে যাওয়া

থার্ড পার্টি অ্যাপের মাধ্যমেই কিন্তু তথ্য চুরির ঘটনা ঘটেছে। তাই সেদিকেও বিশেষ নজর রাখছে ফেসবুক। সাধারণত বহু অ্যাপই গ্রাহকদের ব্যক্তিগত বহু তথ্যের অ্যাকসেস চায়। ফেসবুকের নতুন নিয়মে এবার থেকে কেবল নাম, প্রোফাইল ফটো ও ই-মেইল এর বেশি আর কোনো তথ্যই এই ধরনের অ্যাপগুলো চাইতে পারবে না। এমন কী, কোনো অ্যাপ যদি গ্রাহকরা শেষ ৩ মাসে ব্যবহার না করে থাকেন, সেক্ষেত্রে ডেভেলপাররা অ্যাকসেস পাবেন না সেই গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্যের।

ফোন নম্বর বা ই-মেইল দিয়ে সার্চ করা

ফেসবুকে কাউকে খুঁজে বের করতে হলে অনেক সময়ই তাদের ফোন নম্বর বা ই-মেইলও কাজে লাগে। বিশেষ করে একই নামের অন্য ব্যক্তিদের ভিতর থেকে নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে খুঁজে বের করতে হলে। এখন থেকে এই সেবা আর পাওয়া যাবে না।