Monday , October 15 2018

অনলাইনে আবেদন করে মন্ত্রী হওয়া যাবে ইরাকে!

নাগরিকদের মধ্যে যারা মন্ত্রী হতে চায় তাদেরকে অনলাইনে আবেদন করার আহবান জানানো হয়েছে ইরাক সরকারের পক্ষ থেকে! বিষয়টি অভিনব মনে হলেও এমন ঘোষণাই দিয়েছেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী পদে মনোনীত আদেল আবদুল মেহদি। তিনি এই ঘোষণার মধ্য দিয়ে সব নাগরিকের জন্য মন্ত্রী হওয়ার দরজা খুলে দিলেন। ইরাকে সাধারণত প্রিয়ভাজন ব্যক্তিদের মধ্যে রাজনৈতিক পদ-পদবিগুলো বেচা-কেনা হতো। তা বন্ধেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।







ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে মঙ্গলবার এ ব্যাপারে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়। ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘নিজকে মন্ত্রী অথবা সরকারের বড় পদের জন্য যোগ্য মনে করা নারী-পুরুষ নির্বিশেষে যেকোনো ইরাকি আবেদন করতে পারবেন। এর জন্য তাঁদের প্রত্যাশিত পদের নাম উল্লেখ করে জীবনবৃত্তান্তসহ অনলাইনের মাধ্যমে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আবেদন করতে হবে।’







ওই বিবৃতিতে প্রার্থীদের জীবনবৃত্তান্ত পাঠানোর তারিখ বেঁধে দেওয়া হয়। ৯ থেকে ১১ অক্টোবরের মধ্যে এই আবেদন করা যাবে। ইরাকের সংবিধান অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীকে তাঁর দায়িত্ব গ্রহণের ৩০ দিনের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ গঠন করতে হয়।







রাজনৈতিক বিশ্লেষক আহমেদ আল-দালুনি আল আরাবিয়া ইংলিশকে বলেন, সরকারের এই উদ্যোগ ইরাকি জনগণের মধ্যে আশার সঞ্চার করেছে। তিনি বলেনে, দীর্ঘদিন ধরে ইরাকে প্রিয়ভাজন ব্যক্তিদের মধ্যে রাজনৈতিক পদ-পদবিগুলো বেচা-কেনা হতো। এই উদ্যোগের ফলে সেই তৎপরতা বন্ধের একটি প্রক্রিয়া শুরু হলো।







২ অক্টোবর ইরাকের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বারহাম সালিহ প্রধানমন্ত্রী আবদুল মেহদিকে নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের দায়িত্ব দেন। মেহদি সদ্য বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-আবাদির মন্ত্রিপরিষদের তেলমন্ত্রী ছিলেন। কিন্তু দায়িত্ব নেওয়ার দুই বছরের মাথায় ২০১৬ সালে তিনি ওই পদ থেকে পদত্যাগ করেন। এর আগে মেহদি ২০০৫ থেকে ২০১১ সালে ইরাকের ভাইস-প্রেসিডেন্ট ছিলেন।