Tuesday , October 23 2018

তিন দিনে পাঁচ কেজি ওজন কমাবেন কীভাবে?

অল্প সময়ের মধ্যে ওজন কমাতে চান অনেকে। অল্প সময়ে ওজন কমাতে চাইলে কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে জীবনযাপনের বেশ কিছু ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনতে হবে। মেনে চলতে হবে কঠিন কিছু নিয়ম। তিন দিনে পাঁচ কেজি ওজন কমাতে কার্যকরী ডায়েট পরিকল্পনা করতে হবে। সে পরিকল্পনা অনুযায়ী চলতে হবে।







ওজন কমানোয় কার্যকরী এ পরিকল্পনার কথা বলেছেন ঢাকার বারডেম জেনারেল হাসপাতালের খাদ্য ও পুষ্টি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও প্রধান পুষ্টিবিদ শামসুন্নাহার নাহিদ। তিনি বলেন, ‘শরীরের বাড়তি ওজন কমাতে আমরা সকলেই বেশ তৎপর। ওজন কমানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ধীরে ধীরে স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন কমানো। ওজন কমাতে বেশ কিছু ডায়েট পরিকল্পনা রয়েছে, যার মাধ্যমে আপনি স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন কমাতে পারবেন।’







প্রথম দিন

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো প্রথম দিনটি। এ দিনের ওপর নির্ভর করে আপনার তিন দিনের প্ল্যান। প্রথম দিন বেশি করে ফল খান। যখন খেতে মন চাইবে, তখনই আপনি ফল খেতে পারবেন। তবে একসঙ্গে অনেকগুলো ফল খাওয়া উচিত নয়। প্রতিবার অল্প করে খাওয়া শরীরের জন্য ভালো। ডায়েটের প্রথম দিন কলা খাওয়া উচিত নয়। কলা বাদে যেকোনো ফলই আপনি খেতে পারবেন প্রথম দিন। যে ফলে পানির পরিমাণ বেশি, সে ফল খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। এতে পেট অনেক সময় ভরা থাকে। এ ছাড়া সারা দিন ৮ থেকে ১২ গ্লাস পানি অবশ্যই পান করা উচিত। ডায়েটের সময় কখনোই পেট খালি রাখা উচিত নয়। যখনই ক্ষুধা লাগবে, তখনই ফল খাবেন। প্রথম দিন সকালের নাশতায় একটি ডিম, এক স্লাইস টোস্ট এবং অর্ধেক বাটি সবজি; দুপুরের খাবারে একটি সেদ্ধ ডিম; রাতের খাবারে আধা কাপ শসা বা গাজর, অর্ধেকটা পরিমাণ ফল রাখতে পারেন।







দ্বিতীয় দিন

দ্বিতীয় দিন ফলের পাশাপাশি খাবার তালিকায় সবজি রাখুন। এদিন ফল কম খাওয়াই ভালো। কাঁচা বা রেঁধে—যেকোনোভাবেই খেতে পারেন আপনার পছন্দের সবজি। সবজি রান্না করার সময় তেলের পরিমাণ খুব কম ব্যবহার করুন। রান্নায় বেশি পরিমাণ তেল খেলে ওজন কমার চেয়ে বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা বেশি। তাই তেল ব্যবহার না করে আধা সেদ্ধ করে বা নিজের পছন্দ অনুযায়ী রান্না করে খেতে পারেন। সবজি তালিকায় রাখতে পারেন গাজর, ব্রকলি, বাঁধাকপি, শসা, লেটুস, শিম ইত্যাদি। তবে ডায়েটের তিন দিন আলু না খাওয়াই ভালো। আলুতে প্রচুর পরিমাণে শর্করা রয়েছে।







সামান্য পরিমাণ আলু সকালের খাবার তালিকায় রাখতে পারেন। এতে সারা দিনের বিভিন্ন কাজে ক্যালরি ক্ষয় হয়ে যাবে এবং চর্বিও জমবে না। প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিনও ৮ থেকে ১২ গ্লাস পানি পান করতে হবে। দ্বিতীয় দিন সকালের নাশতায় এক স্লাইস চিজ, একটি ছোট আপেল; দুপুরের খাবারে একটি ডিম, এক স্লাইস টোস্ট; রাতের খাবারে এক কাপ টুনা বা অন্য কোনো মাছ এক টুকরা ও পরিমাণমতো সবজি রাখুন।







তৃতীয় দিন
ডায়েট প্ল্যানের শেষ দিনও খাবার তালিকায় সবজি এবং ফল রাখুন। শেষ দিন সবজি ও ফল পেটভরে খেতে পারবেন। কলা ও আলু না খাওয়াই ভালো। প্রথম দুই দিনের মতো শেষ দিনও সমপরিমাণ পানি পান করুন। শেষ দিন সকালের নাশতায় এক স্লাইস চিজ, একটি ছোট আপেল; দুপুরের খাবারে একটি ডিম, এক স্লাইস টোস্ট; রাতের খাবারে এক কাপ টুনা বা অন্য কোনো মাছ এক টুকরা, পরিমাণমতো সবজি রাখুন।







তিন দিন শেষে আপনার শরীরের ওজন অন্তত চার–পাঁচ কেজি তো কমবেই, সঙ্গে সঙ্গে শাকসবজি, ফলমূল এসব পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার জন্য চেহারায়ও উজ্জ্বলতা আসবে। তবে ডায়েট শুরু করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত। পুষ্টিবিদের পরামর্শ নিয়ে এই ডায়েটটি মেনে চলে অনায়াসেই আপনি তিন দিনে পাঁচ কেজি ওজন কমিয়ে ঝরঝরে হতে পারবেন। ডায়েট চলাকালীন সময় কৃত্রিম ফলের রস, কোমল পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকুন। যেকোনো খাবারে চিনি না খাওয়াই ভালো।

-প্রথম আলো