Tuesday , October 23 2018

অর্থ পাচার; এবার পদত্যাগ করলেন এবি ব্যাংকের চেয়াম্যান

অর্থ পাচারসহ বিভিন্ন অভিযোগ বিষয়ে এবি ব্যাংক নিয়ে দুদকের তদন্ত চলাকালে এবার পদত্যাগ করলেন ব্যাংকটির এমডি মশিউর রহমান চৌধুরী। গতকাল ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি। এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে ব্যাংকটির চেয়ারম্যান এম ওয়াহিদুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম আহমেদ ও পরিচালক ব্যারিস্টার ফাহিমুল হক পদত্যাগ করেন। ওই সময় এমএ আউয়ালকে চেয়ারম্যান করা হলেও তিনি এখন আর পর্ষদে নেই। নানা অনিয়মের কারণে ব্যাংকটির বিভিন্ন আর্থিক সূচক এখন নিম্নমুখী। বেশ কিছুদিন ধরে তারল্য সংকটে রয়েছে ব্যাংকটি।







মসিউর রহমান চৌধুরী ২০১৭ সালের ৯ মার্চ থেকে এবি ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে নিয়োজিত আছেন। এই পদে যোগদানের পূর্বে তিনি ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং ঋণ বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার আগে ২০০৩ সালের ২৬ জুন ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে এবি ব্যাংক ক্রেডিট রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ডিভিশনে যোগদান করেন।







তিনি ১৯৮৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি. কম (অনার্স), এম. কম (অ্যাকাউন্টিং) সম্পন্ন করে ‘সিনিয়র অফিসার-ফিনান্সিয়াল এনালিস্ট’ হিসেবে সোনালী ব্যাংক লিমিটেডে ব্যাংকিং কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি সেখানে ২২ জুন ২০০৩ সাল পর্যন্ত অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, মেলবোর্ন ও অস্ট্রেলিয়া থেকে এমবিএ ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।







প্রসঙ্গত, এবি ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান এম ওয়াহিদুল হক, পরিচালক মো. ফিরোজ আহমেদ, সাবেক পরিচালক এম এ আউয়াল, প্রফেসর ডা. মো. ইমতিয়াজ হোসেনকে আগামী ১ অক্টোবর তলব করা হয়েছে। পরিচালক শিশির রঞ্জন বোস, পরিচালক সৈয়দ আফজাল হাসান উদ্দীন, সাবেক পরিচালক মিশাল কবির, সাবেক পরিচালক ফাহিমুল হককে ২ অক্টোবর তলব করা হয়েছে। একই বিষয়ে সাবেক পরিচালক মো. মেজবাহুল হক, আনোয়ার জামিল সিদ্দিকী, সাবেক পরিচালক বিবি সাহা রায় ও সাবেক পরিচালক জাকিয়া শাহরুদ খানকে আগামী ৩ অক্টোবর তলব করেছে দুদক।