Thursday , May 23 2019

মেয়েদের জামার বোতাম বামে থাকার রহস্য কী?

মেয়েদের জামার বোতাম- স্বাভাবিকভাবে দেখা যায় ছেলেদের শার্টের বোতাম থাকে ডান পাশে। কিন্তু মেয়েদের ব্যপারে তার উল্টো। মেয়েদের জামার বোতাম থাকে বামে। এ নিয়ে অনেক যুক্তি-পাল্টা যুক্তি রয়েছে।

জানা যায়, জামাতে বোতাম লাগানোর প্রচলন শুরু হয় সিন্ধু সভ্যতার সময় থেকে। সে সময় ঝিনুকের খোলস দিয়ে বানানো হতো বোতাম। এরপর ১৩ শতকে জার্মানিতেও বোতামের প্রচলন শুরু হয়।







বিশেষজ্ঞদের মতে, সাধারণত ধনী ব্যক্তিদের জামাতেই বোতাম থাকত। আর পুরুষরা নিজেরাই জামা পরতেন। সে ক্ষেত্রে তিনি রাজা-মহারাজাই হোন, বা অতি সাধারণ কেউ। তাই তাদের শার্টের বোতাম ডান দিকে লাগানো থাকত।

কিন্তু মহিলাদের জামা কাপড় পরানোর জন্য আলাদা দাসী নিযুক্ত করা হত। তাই তাঁরাই জামা পরিয়ে দিতেন। আর দাসীদের সবাইকে ডান হাতি হিসেবে ধরে নেয়া হত। যে কারণে দাসীদের জামা পরানোর সুবিধার কথা চিন্তা করে মহিলাদের জামার বোতাম বাঁ দিকে লাগানো শুরু হয়।

বিষয়টি নিয়ে ইতিহাসবিদরা মনে করেন, নেপোলিয়ন বোনাপার্ট এই নিয়মের প্রবর্তন করেন। নেপোলিয়ান বোনাপার্টের যে কোনও ছবিতেই দেখা যায়, তাঁর ডান হাত কোর্টের ভিতরে ঢোকানো। এক হাত কোর্টের ভিতর গুজে রাখার একটি অভ্যাস ছিল তার। যে কারণে নারীরা এটা নিয়ে ঠাট্টা করতো। আর এটি উপলদ্ধি করতে পেরেই তিনি মেয়ের শার্টের বোতাম উল্টো দিকে লাগানো আদেশ দেন।

অন্যদিকে আরেকটি প্রচলন রয়েছে, মেয়েরা যে পুরুষদের থেকে কোনও অংশে কম নন, তা বোঝানোর জন্যই পুরুষের মতো জামা পরেছেন। তার পরেও বৈচিত্র্যর কথা ভেবে পরিকল্পিতভাবেই মেয়েরা জামার বাঁদিকে বোতাম বসিয়েছেন।

অনেকেই মনে করেন, একজন দর্জিকে একসঙ্গে নারী-পুরুষের জামা বানাতে হত। আর পুরুষ ও নারীদের জামা যাতে মিশে না যায়, যাতে চট করে আলাদা করে নেওয়ার সুবিধার জন্যই এই ব্যবস্থা।







তাছাড়া তখনকার সময়ে পুরুষরা ঘোড়া নিয়ে ছুটলে রাস্তার বাঁদিক ঘেঁষেই যেতেন, যাতে ডান দিকে তলোয়ার চালাতে সুবিধা হয়। তলোয়ার গোঁজা থাকত বাঁ-কোমরে। তখন এটি বের করার সময় যাতে জামা বা কোটের বোতামের খাঁজে আটকে না যায়, তার জন্যই বোতাম বসানো হতো ডানদিকে।

কিন্তু মেয়েরা যখন ঘোড়ায় চড়ত বা এখন বাইকে বসেন, তখন দুটো পা-ই সাধারণত বাঁদিকে থাকে। শার্টের ভিতরে যাতে হাওয়া না ঢুকতে পারে, সে জন্যই বোতাম বসানো হয় বাঁদিকে।

এছাড়া আরেকটি প্রচলন রয়েছে, যেহেতু নারীদের ক্ষেত্রে তাদের বাচ্চাকে বাম দিক ধরলে ডান হাত খালি থাকে। আর বাচ্চাকে দুধ খাওয়ানোর সময় ডান হাতে বোতাম খুলতে হয়। সেক্ষেত্রে বোতাম ডানদিকে থাকলে খুলতে কষ্ট হতো। তা মাথায় রেখেই বাঁদিকে বোতাম বসানো হয়।