Wednesday , November 14 2018

‘খাশোগির লাশ কেটে পাঁচটি স্যুটকেসে ভরা হয়’

সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যাকাণ্ড নিয়ে নতুন তথ্য দিল তুরস্কের সরকারপন্থী সংবাদমাধ্যম সাবাহ। পত্রিকাটির দাবি খাশোগির লাশ কেটে পাঁচটি স্যুটকেসে ভরানো হয়। খবর আল-জাজিরার।







নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তুরস্কের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানায়, খাশোগির লাশ কেটে পাঁচটি স্যুটকেসে ভরিয়ে সৌদি কনস্যুলেটের ( যেখানে খাশোগিকে হত্যা করা হয়) পাশে একটি ভবনে নিয়ে যাওয়া হয়।







ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, খাশোগি হত্যার মিশনে যোগ দেওয়া ১৫ জনের মধ্যে ৩ জন মাহের মোরেব, সালাহ তুবেগি এবং থার আল হারবি খাশোগির লাশ কেটে ও সেটি কনস্যুলেটের বাইরে পাচার করে।







এর মধ্যে মোরেব সৌদি বাদশা সালমানের প্রধান সহকারি ছিলেন। অন্যদিকে তুবেগি ছিলেন সৌদি ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ও সৌদি সেনা বাহিনীর কর্নেল। এবং আল হারবিকে গতবছর পদোন্নতি দিয়ে লেফটেন্যান্ট বানানো হয়।







উল্লেখ্য, তুর্কি বাগদত্তা হেতিস চেঙ্গিসের সঙ্গে বিয়ের প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র আনতে গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর খুন হন ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার কলাম লেখক ও স্বেচ্ছা-নির্বাসিত সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি। শুরুতে অস্বীকার করলেও ১৯ অক্টোবর সৌদি জানায়,তুরস্কের ইস্তাম্বুল কসন্যুলেটে গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের সঙ্গে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে খাশোগির মৃত্যু হয়। এর দুদিন পরই খাসোগিকে হত্যা করা হয়েছে বলেও স্বীকার করেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।







সৌদি আরবের দাবি,এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গোয়েন্দা সংস্থার উপ-প্রধান এবং যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের দেহরক্ষিকে বরখাস্ত করা হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে মোট ১৮ জনকে।







তবে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে,খাশোগির খুনের পেছনে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানই কলকাঠি নেড়েছেন।

ইত্তেফাক