Wednesday , November 14 2018

মাঠে ঢুকে পড়ার পর কী পরিণতি হয়েছিল মুশফিকের ঐ দুই ভক্তের?

সিলেট টেস্টকে যত দ্রুত সম্ভব ভুলে যেতে চাইবে এদেশের ক্রিকেট অঙ্গন। অপেক্ষাকৃত কম শক্তিশালী জিম্বাবুয়ের কাছে বিশাল পরাজয় ক্রিকেট অঙ্গনকে দিয়েছে বড় বার্তা।

তবে কিছু কারণে চাইলেও এই টেস্ট এত সহজে মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলতে পারবেন না সমর্থকরা। আর সেই কিছু কারনের দুটি কারণ- সিলেট টেস্টে দুইবার মুশফিকুর রহিমকে জড়িয়ে ধরতে ভক্তের মাঠে প্রবেশের ঘটনা।







টেস্টের প্রথম দিন (৩ নভেম্বর) জিম্বাবুয়ের প্রথম ইনিংসের ৪৮তম ওভার চলাকালে মুশফিকের ক্ষুদে এক ভক্ত গ্যালারির বাধা টপকে মাঠে প্রবেশ করে ছুটে যায় মুশফিকের কাছে। এই ঘটনায় পরবর্তীতে ভয় ও শঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন মুশফিক। ঐ ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোচনা-সমালোচনার পর তৃতীয় দিন (৫ নভেম্বর) আবারও ঘটেছে একই ঘটনা।

জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় ইনিংসের ৪২তম ওভার শেষ হওয়ার পর গ্যালারি টপকে মাঠে প্রবেশ করে এক ভক্ত মুশফিকের কাছে ছুটে যান এবং তাকে জড়িয়ে ধরেন। তবে এই ভক্ত দুই দিন আগের ঘটনার মত ক্ষুদে বা আনকোরা কেউ ছিলেন না, ছিলেন টগবগে তরুণ। পরিস্থিতি সামাল দিতে ক্রিকেটাররা জড়ো হয়ে যান এবং দ্রুত নিরাপত্তারক্ষীরা মাঠে প্রবেশ করে ভক্তকে সরিয়ে নেন।







ক্রিকেট অঙ্গনে নিরাপত্তার শঙ্কা জাগিয়ে তোলা ঐ দুই ভক্তের পরিণতি কী হয়েছিল? প্রথম দিন মাঠে প্রবেশ করা ক্ষুদে ভক্তের প্রতি খুব একটা কঠোর হয়নি প্রশাসন। মাঠ থেকে তাকে সোজা পাঠিয়ে দেওয়া হয় বাসায়। আর দ্বিতীয় ম্যাচের ‘তাগড়া জোয়ান’ ঐ ভক্তকে খাটতে হয়েছে জেল! ৫ ঘণ্টা হাজতবাসের পর বাবা-মায় মুচলেকা দিয়ে তাকে ছাড়িয়ে নেন।

এতসব আলোচনার পর একটি প্রশ্ন আসে- নিরাপত্তা নিয়ে যখন এত শঙ্কা, কেন মাঠকে ঘেরা হচ্ছে না কাঁটাতার দিয়ে, দেশের অন্য স্টেডিয়ামগুলোর মত? সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও বিসিবি পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বিডিক্রিকটাইমকে জানালেন, ‘কাঁটাতারের বেড়া দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু এতে স্টেডিয়ামের সৌন্দর্য নষ্ট হবে।’