প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিএনপির ‘গায়েবি’ আসামির তালিকা, চিঠিতে যা আছে; বিস্তারিত পড়ুন…

সংলাপের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ১০০২টি মিথ্যা ও গায়েবি মামলায় ৩৬ হাজার আসামির তালিকা দিয়েছে বিএনপি।

মঙ্গলবার বিকেলে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এই তালিকা জমা দেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তা রুহুল আমিন তালিকাটি গ্রহণ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন টিপু।













এ সময় তিনি জানান, পরবর্তীতে আরো মামলা ও আসামির তালিকা দেয়া হবে।

গায়েবী মামলার দ্বিতীয় তালিকার চিঠি

প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া তালিকার সঙ্গে বিএনপির চিঠিতে বলা হয়, কয়েক বছর ধরে বিএনপির জাতীয় নেতারাসহ দেশব্যাপী জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা, এমনকি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাদের বিরুদ্ধেও ধারাবাহিকভাবে হাজার হাজার মিথ্যা, উদ্ভট, গায়েবি ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা করা হচ্ছে।

গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে দেশজুড়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্যাপকহারে বিএনপি ও অঙ্গ–সংগঠনের নেতা–কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিয়ে জেলহাজতে পাঠিয়েছে এবং রিমান্ডে নিয়ে অকথ্য নির্যাতন করছে।

এ ধরনের ন্যক্কারজনক ও অমানবিক ঘটনা নিঃসন্দেহে গভীর উদ্বেগজনক। ন্যূনতম কোনো সত্যতা বা প্রমাণ না থাকলেও নেতা–কর্মীদের এ ধরনের বানোয়াট ও হাস্যকর মামলায় প্রতিদিন জড়ানো হচ্ছে।

চিঠিতে আরও বলা হয়, আশ্চর্য হলেও সত্য, বিএনপি ও অঙ্গ–সংগঠনের মৃত ব্যক্তি বা দেশের বাইরে অবস্থানরত ব্যক্তিদেরও মিথ্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে।

এর আগে গত ৬ নভেম্বর একই ধরনের আরেকটি তালিকা দিয়েছিল বিএনপি।













দু’দফা সংলাপে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম অভিযোগ করেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলার কারণে নেতাকর্মীরা চলাফেরা করতে পারছে না।

তখন এসব মিথ্যা মামলা ‍তুলে নিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান ফখরুল। যা ছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম দাবি।

মির্জা ফখরুলের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিথ্যা ও গায়েবি মামলার তালিকা চান। আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা থাকবে না এবং গ্রেপ্তার-হয়রানি করা হবে না।

তারই ধারাবাহিকতায় মিথ্যা মামলার তালিকা জমা দিলো বিএনপি।