Thursday , May 23 2019

১০ হাজার বিএনপি নেতা-কর্মীর পদত্যাগ

দলের প্রার্থী না পেয়ে বিএনপি ছেড়ে দিলেন বিএনপির যশোরের মনিরামপুর শাখার নেতা-কর্মীরা। দলের সঙ্গে যারা সম্পর্ক ছেদ করেছেন, তারা জানান, গত দুই দিনে এই সংখ্যাটি অন্তত ১০ হাজার।

যশোর-৫ আসনে ২০০১ সাল থেকেই বিএনপি নিজের প্রার্থী না দিয়ে ছাড় দিয়ে আসছে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাংশের নেতা মুফতী মুহাম্মদ ওয়াক্কাসকে।কিন্তু এবার বিদ্রোহ করে বসেছে বিএনপি।

শনিবার মুফতি ওয়াক্কাস বিএনপির চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি নিয়ে এলাকায় যাওয়ার পর হামলা হয়েছে তার গাড়িতে। আর অভিমানে বিএনপি থেকে পদত্যাগের হিরিক পড়ে।

সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মনিরামপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি শহীদ ইকবাল হোসেনের হাতে তিন হাজার নেতাকর্মী পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।উপজেলার ১৭টি ইউনয়নের সব নেতাকর্মীরা পদত্যাগপত্রে সই করেছেন বলেও জানান তিনি। এই সংখ্যাটি সাত হাজার।

উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নের প্রতিটিতেই দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা পদত্যাগ করেন।

এ ব্যাপারে পৌর বিএনপির সভাপতি খাইরুল ইসলাম বলেন,‘অষ্টম ও নবমসংসদ নির্বাচনে ২০ দলীয় জোট থেকে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাসকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। যদিও মনিরামপুরে তার তেমন প্রভাব নেই। আবার স্থানীয় জোটের সাথে তার সম্পর্ক অত্যন্ত শীতল। ২০০১ সালে জিতলেও ২০০৮ সালে তিনি হেরে যান। এরপর গত ১০ বছরে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীদের খোঁজখবর নেননি তিনি।’

জেলা যুবদলের সভাপতি এম তমাল আহমেদ বলেন, মনিরামপুর উপজেলার সকল ইউনিয়ন ও পৌর শাখা এবং উপজেলা শাখা মিলে ১০ হাজারের মতো নেতাকর্মী আছেন। আমি যতদূর জানি ৩ হাজার নেতাকর্মী এখন পর্যন্ত পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছে। বাকি সবাই স্বাক্ষর করেছেন এবং মঙ্গলবার নাগাদ হয়তো মনিরামপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি অ্যডভোকেট শহীদ ইকবাল হোসেনের হাতে জমা দেবেন।’

তবে দল যাকে মনোনয়ন দিয়েছে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তার পক্ষে কাজ করা উচিৎ বলে মন্তব্য করেন তিনি।