Wednesday , June 26 2019

বাস থেকে ফেলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে হত্যা, সেই চালক আটক

বাস ভাড়াকে কেন্দ্র করে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে চলন্ত বাস থেকে ফেলে হত্যার ঘটনায় ওই গাড়ির চালককে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৩ মার্চ) রাত ১১টার দিকে সিলেট নগরীর কদমতলী বাসস্ট্যান্ড থেকে তাকে আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ফজল।

জানা যায়, নিহত ছাত্রের নাম ওয়াসিম আদনান। বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলোজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ওয়াসিমের বাবার নাম আবু জাহের মাহবুব ও মায়ের নাম ডা. মিনা পারভিন।

শেরপুর হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক বলেন, ওয়াসিম ও তার কয়েকজন বন্ধু হবিগঞ্জে একটি বিয়ের নিমন্ত্রণ থেকে ‘উদার পরিবহন’র একটি বাসে চড়ে তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরছিলেন। সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাস ড্রাইভার ও হেলপারের সঙ্গে ভাড়া নিয়ে তাদের বচসা হয়। এক পর্যায়ে ওয়াসিমকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হলে ওই বাসের নিচেই তিনি পিষ্ট হয়ে গুরুতর আহত হন।

ঘটনার সময় উপস্থিত ওয়াসিমের বন্ধু শিপলু রায় বলেন, আহত অবস্থায় ওয়াসিমকে দ্রুত সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে ওয়াসিমের সহপাঠীদের বরাত দিয়ে উপাচার্য মতিয়ার রহমান হাওলাদার বলেন, বিকাল ৫টার দিকে ময়মনসিংহ থেকে সিলেটগামী উদার পরিবহনের একটি বাসে নবীগঞ্জের গোপলালবাজার থেকে ওঠেন ওয়াসিম ও তার কয়েকজন সহপাঠী।

‘সিট না পাওয়া ও বাস ভাড়া নিয়ে বাসের সহকারীর সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় তাদের। তারা শেরপুরে বাস থেকে নামতে চাইলে বাসের হেলপার ওয়াসিমকে বাস থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়।’

গুরুতর অবস্থায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে তার মৃত্যু হয় বলে জানান তিনি।

আটক জুয়েল উদার পরিবহনের বাসটির চালক। তবে বাসটির হেলপারকে আটক করা যায়নি।