Tuesday , May 21 2019

গতকাল ঢাকায় পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় আইএস-এর দায় স্বীকার!

ঢাকায় পুলিশের ওপর গতকাল সোমবারের (২৯ এপ্রিল) হামলার ঘটনায় জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস-এর দায় স্বীকারের খবর প্রকাশ করেছে জঙ্গি তৎপরতা বিষয়ক খবরের মুনাফাভিত্তিক মাধ্যম সাইট ইন্টেলিজেন্স। গুলিস্তান মার্কেটে চালানো ওই হামলায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। গুলশানের হলি আর্টিজান হামলায় পর এবার দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশে সংঘটিত কোনও হামলায় আইএস-এর দায় স্বীকারের খবর পাওয়া গেলো।

২৯ এপ্রিল রাজধানীর মতিঝিল থানাধীন বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ এলাকায় কর্তব্যরত পুলিশের ওপর হাতবোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই ট্রাফিক পুলিশ ও এক কমিউনিটি পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। এর মধ্যেই আইএস এ হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে খবর দিয়েছে সাইট ইন্টেলিজেন্স।

মালয়েশীয় সংবাদমাধ্যম স্ট্রেইট টাইমসের এক প্রতিবেদনে সাইট ইন্টেলিজেন্সের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, ঢাকার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে পুলিশের ওপর হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস। ওই জঙ্গিগোষ্ঠীর দাবি, ঢাকায় তারা একদল পুলিশ সদস্যের ওপর বিস্ফোরক ডিভাইসের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।

সোমবারের হামলায় আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, ট্রাফিক কনস্টেবল নজরুল ইসলাম (৩৭), লিটন চৌধুরী (৪০) ও কমিউনিটি পুলিশ সদস্য মো. আশিক (২৫)। ঘটনাস্থলে উপস্থিত এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘একটি বোমা নিক্ষেপ করা হয়েছিল। নিক্ষেপ করা বোমাটি হাতে তৈরি।’ ঘটনাস্থল থেকে সিআইডি’র ক্রাইম সিনের সদস্যরা আলামত সংগ্রহ করছেন।

দুই বছরেরও বেশি সময় আগে গুলশানের হলি আর্টিজান হামলার দায় স্বীকার করেছিল আইএস। দুনিয়াজুড়ে আলোড়ন তৈরি করা ওই হামলায় ২০ জনকে হত্যা করে জঙ্গিরা। নিহতদের মধ্যে ৯ জন ইতালি, ৭ জন জাপান, ৩ জন বাংলাদেশি এবং ১ জন ভারতীয় নাগরিক। এছাড়া জঙ্গিদের হামলায় দুই পুলিশ সদস্যও নিহত হন।

সেনাবাহিনীর কমান্ডো অভিযানে পাঁচ হামলাকারীও নিহত হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে আরও একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়; যাকে পরে রেস্টুরেন্টের কর্মচারী হিসেবে শনাক্ত করা হয়। হামলাকারীদের মধ্যে অনেকেই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলো। এরা শিক্ষিত ও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। মামলার তদন্তে ঘটনার সঙ্গে মোট ২১ জন জড়িত ছিল বলে জানতে পারে পুলিশ। এর মধ্যে ঘটনার দিন ও পরে ১৩ জনই নিরাপত্তা বাহিনীর বিভিন্ন অভিযানে নিহত হয়।