হলুদ চা খেলেই কমবে ওজন

মোটা হয়ে যাচ্ছেন। ওজন কমানোর জন্য যাকিছু খাচ্ছেন তাতে উল্টো ওজন আরো বেড়ে যাচ্ছে।এবার একটা সহজ উপায় জেনে রাখেন। হলুদ দিয়ে চা খান। তবে প্রতিদিন যেভাবে চা খান সেভাবে নয়, এই চা বানাতে হবে হলুদ দিয়ে। হলুদে কিছু গুণ আছে আমরা সবাই জানি। ওজন কমানোর যাবতীয় গুণ রয়েছে হলুদে।

আসুন জেনে নিন হলুদের কিছু গুণ…
১) হলুদে রয়েছে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণাগুণ
ইনফ্ল্যামেশন বা প্রদাহের কারণে শরীরে চর্বি জমে এবং ওবেসিটি বা অতিরিক্ত স্থূলতা দেখা দেয়। হলুদ ইনফ্ল্যামেশন এবং অক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমায়। ফলে ওজন কমাতে তা কাজে আসে।
২) হলুদ মেটাবলিক সিনড্রোম প্রতিহত করে
ওবেসিটির পেছনে মেটাবলিক সিনড্রোম আরও একটি কারণ।পেট ঘিরে মেদ জমলে মেটাবলিক সিনড্রোম দেখা দেয়। হলুদ চা পান করলে কোলেস্টোরেল, ট্রাইগ্লিসারাইড এবং ব্লাড সুগার কমে। ফলে মেদ জমতে পারে না।

৩) হলুদ হজমে সহায়তা করে
হজমে সমস্যা থাকলে ওজন বাড়তে দেখা যায়।অন্যদিকে পরিপাকতন্ত্র সুস্থ থাকলে ওজন কমানোটা সহজ হয়। গ্যাস, পেট ফাঁপার মতো সমস্যাগুলো কমায় হলুদ। তা হজম ত্বরান্বিত করে ফলে ওজন কমে।
৪) পিত্তরসের উত্‍পাদন বাড়ায়
নিয়মিত হলুদ চা পান করলে পরিপাকতন্ত্রে পিত্তরসের উত্‍পাদন বাড়ে। পিত্তরস সহজে খাবারের চর্বি গলিয়ে ফেলে এবং তা পোড়াতে সাহায্য করে। ফলে শরীরে চর্বি জমে না।
৫) ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে
রক্তে শর্করা বা সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং ইনসুলিন রেজিসটেন্স প্রতিরোধ করে হলুদ চা। ফলে শরীরে অতিরিক্ত চর্বি জমতে পারে না।
কীভাবে তৈরি করবেন হলুদ দেয়া চা।জেনে নিন-
উপকরণ: এক চিমটে হলুদ গুঁড়ো অথবা কাঁচা হলুদ বাটা
আদা কুচি অথবা আদা বাটা এক চিমটে

প্রক্রিয়া:‌ একটি সসপ্যানে এক কাপ জল নিয়ে গ্যাসে বসান, সেটা গরম হয়ে এলে তাতে এক চিমটে আদা বাটা এবং এক চিমটে হলুদ বা হলুদ বাটা দিন। জল ফুটে এলে গ্যাস বন্ধ করে দিন। ঠাণ্ডা হতে দিন।
স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এলে।ছাকনি দিয়ে কাপে ছেঁকে নিন। তৈরি আপনার হলুদ দেওয়া চা।
শুধু ওজন কমানোই নয়, সুগারও নিয়ন্ত্রণে রাখে এই হলুদ দেওয়া চা। শরীরে মেদ জমতে দেয় না।খাবার হজম করতে সাহায্য করে।