মসজিদের সামনে দিনে-দুপুরে কুপিয়ে খু-ন, পুলিশের গুলিতে ‘হত্যাকারী’ নিহত..! (ভিডিওসহ)

চাহিদামত চাঁদার টাকা না পেয়ে দিনে-দুপুরে শত-শত মানুষের সামনে এসিআই ফার্মাসিউটিক্যালসের এরিয়া ম্যানেজারকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে এক মাদকাসক্ত যুবক। এরপর সেখান থেকে পালানোর সময় পুলিশ ধাওয়া করলে পুলিশকেও চাপাতি দিয়ে কোপাতে গেলে পুলিশের গুলিতে মৃত্যুর স্বাদ পেয়েছে ওই দুর্বৃত্ত। ওই মাদকাসক্তের এমন উপযুক্ত মৃত্যুর ঘটনায় এলাকাবাসী আনন্দ স্লোগানের পাশাপাশি স্বস্তি প্রকাশ করেছে।

ঘটনাটি ময়মনসিংহ শহরের। আজ বৃহস্পতিবার শহরের নওমহল মসজিদে জোহরের নামায আদায় করেন মোফাজ্জল হোসেন (৪৫)। তার বাড়ি রাজশাহীর মোহনপুর হলেওএসিআই ফার্মাসিউটিক্যালসের এরিয়া ম্যানেজারের চাকরিসূত্রে তিনি ময়মনসিংহ শহরে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে থাকতেন।

তার কাছে দীর্ঘদিন ধরে মাদকের জন্য টাকা চেয়ে আসছিল শহরের বাঁশবাড়ি কলোনির ইঞ্জিনিয়ার আব্দুর রাজ্জাকের মাদকাসক্ত ছেলে নিটুল (৩০)। কিন্তু মোফাজ্জল তাকে টাকা দিতে অস্বীকার করলে দু’জনের মধ্যে বাক-বিতন্ডা হয়। এটা নিয়ে বুধবার সালিশ-বৈঠকও হয়।

এরই জেরে বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে নামায শেষে নওমহল মসজিদের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা মোফাজ্জলকে প্রকাশ্যে দিবালোকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় নিটুল।

খবর পেয়ে কোতোয়ালি থানা পুলিশের এসআই বিজন ও কনস্টেবল আবুল হোসেন ঘটনাস্থলের কাছাকাছি গেলে ওই মাদকাসক্ত মোটরসাইকেল থামিয়ে পিছন থেকে আবুল হোসেনকেও ছুরিকাঘাত করে পালাতে থাকে।

পুলিশকে চাপাতি দিয়ে কোপানো হয়েছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে ডিবি পুলিশ ও কোতোয়ালি থানা পুলিশের একাধিক দল পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে। একপর্যায়ে নিটুল পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে পুলিশ গুলি করে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় ওই মাদকসেবী।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, একজনকে প্রকাশ্য দিবালোকে খুন করা হয়েছে এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ওই দুই পুলিশ পৌঁছালে মাদকাসক্ত নিটুল কনস্টেবল আবুল হোসেনকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে গুলিতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে।

তিনি বলেন, মাদকসেবী নিটুলের অত্যাচারে নওমহল ও বাঁশবাড়ি এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ ছিল। পুলিশের গুলিতে মাদকাসক্ত নিটুলের মৃত্যুর খবরে স্থানীয়রা স্বস্তি প্রকাশ করেছেন।

দেখুন ভিডিও-