কোন বয়সে বিয়ে করবেন? কী বলছে আপনার রাশিফল?

জন্ম-মৃত্যু-বিয়ে নাকি বিধাতার হাতে। যখন হওয়ার তখনই হবে। তবে এই তখনের আশায় তো আর বসে থাকলে চলবে না। আপনাকেও একটু ভাবনাচিন্তা করতে হবে। কাকে মনের মানুষ হিসেবে বেছে নেবেন? এ প্রশ্নের উত্তর যেমন জানতে হবে, তেমনই জানতে হবে কখন ছাদনাতলায় সেজেগুজে যাওয়ার আপনার পক্ষে মঙ্গল।













এরিস (২১ মার্চ – ১৯ এপ্রিল): একটু বেশিই দামাল হন এই রাশির জাতকরা। যে কোনও সম্পর্ক নিয়ে বড্ড তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্তে পৌঁছে যান। সঙ্গে সঙ্গে ফল চান। তবে এটাও তো বুঝতে হবে যে সবুরেই মেওয়া ফলে। তাই ২০ বছর বয়সের আগে বিয়ের কথা ভাববেনও না।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

টরাস (২০ এপ্রিল – ২০ মে): এরিস আবেগে যতটা উদ্দাম, ততটাই শান্ত, ধীর, স্থির টরাস। তবে জীবনের পরিবর্তনকে এঁরা চট করে মেনে নিতে পারেন না। একবার তা মেনে নিতে পারলে এঁরা খুবই ভাল জীবনসঙ্গী। আর বিয়েটা এঁদের একটু আগেভাগেই করে নেওয়া ভাল।













জেমিনি (২১ মে – ২০ জুন): এঁরা সাধারণত দ্বৈত চরিত্রের হয়ে থাকেন। দুই মনের মাঝেই আটকে যায় এঁদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তগুলি। সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে যথেষ্ট ভাবনাচিন্তা করেন। এঁদের একটু দেরি করে অর্থাৎ ৩০ বছর বয়সের পর বিয়ে করাই ভাল।

ক্যানসার (২১ জুন – ২২ জুলাই): এঁরা বেশ ভাল জীবনসঙ্গী হয়ে থাকেন। বিয়ে নামক সামাজিক প্রতিষ্ঠানে ভীষণভাবে বিশ্বাসী। একটু আগে বিয়ে করতেই পারেন, তাতে ভয়ের কিছু নেই। কারণ সঠিক জীবনসঙ্গী পেলে বাকি জীবনটা মধুরই কাটে।

লিও (২৩ জুলাই – ২২ আগস্ট): এঁদের জীবনে উচ্চাশা প্রচুর। জীবনসঙ্গীর থেকে প্রচুর প্রত্যাশা থাকে। তা বলে এঁরা বহুগামী নন, মনের মতো সঙ্গী পেলে তাঁর সঙ্গেই সারা জীবন কাটিয়ে দেন। তবে সে সঙ্গী বাছতে যথেষ্ট সময় লাগান এঁরা।

ভার্গো (২৩ আগস্ট – ২২ সেপ্টেম্বর): এঁরা একটু বেশিই কেরিয়ার ওরিয়েন্টেড হয়ে থাকেন। জীবনের সমস্ত সিদ্ধান্ত কেরিয়ারকে মাথায় রেখেই নেন। সঙ্গী বাছার ক্ষেত্রেও তাই হয়। তবে একবার কোনও সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললে তাতেই অনড় থাকেন। এমন মানুষদের তাড়াতাড়ি বিয়েটা সেরে ফেলাই ভাল।

লিব্রা (২৩ সেপ্টেম্বর – ২২ অক্টোবর): এই জাতকদের মধ্যে বিয়ে নিয়ে প্রচুর স্বপ্ন থাকে। এঁরা বড্ড তাড়াতাড়ি প্রেমে পড়ে যান। আর সে প্রেমকে বিয়ের পিঁড়িতে নিয়ে যেতে চান। তবে একটু অপেক্ষা করুন। তাড়াতাড়ি বিয়ের সিদ্ধান্ত নিলে বিচ্ছেদও হতে পারে। তাই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে একটু অপেক্ষা করুন।













স্করপিও (২৩ অক্টোবর – ২১ নভেম্বর): এঁরা ভীষণ আবেগপ্রবণ হয়ে থাকেন। আর ততটাই এঁদের মধ্যে বিশ্বাসের অভাব থাকে। এই বিশ্বাসের অভাবেই এঁদের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার প্রবণতা সবচেয়ে বেশি থাকে। তবে একবার বিশ্বাস করতে পারলে যে কোনও বয়সেই বিয়ে করা যাতে পারে।













স্যাজিটেরিয়াস (২২ নভেম্বর – ২১ ডিসেম্বর): এঁরা স্বাধীনচেতা হয়ে থাকেন। আর সে কারণেই বিয়ের বাঁধনে বাঁধতে চান না। এঁদের একটু বেশি বয়সেই বিয়ে করা উচিত। যখন জীবনে সমস্ত স্বপ্ন পূরণ হয়, তারপরেই নিজের সম্পর্কে মনোনিবেশ করা প্রয়োজন।













ক্যাপ্রিকর্ন (ডিসেম্বর ২২ – ১৯ জানুয়ারি): কেরিয়ার নিয়ে সিরিয়াস হলেও এঁরা জীবনের বাকি সম্পর্কগুলোতেও যথেষ্ট দায়িত্বশীল। তাই কম বয়সে বিয়ে করে নিতেই পারেন। বিবাহিত জীবনে তেমন কোনও অশান্তি হওয়ার সম্ভাবনা নেই।













অ্যাকোয়ারিয়াস (২০ জানুয়ারি – ১৮ ফেব্রুয়ারি): স্যাজিটেরাসের মতো এঁরাও স্বাধীনতা পছন্দ করেন। তাই সম্পর্কে জড়ালেও বারবার বিয়ে পিছিয়ে দিতে থাকেন। তবে মনের মতো সঙ্গী পাওয়া গেলে যে কোনও বয়সেই ছাদনাতলায় যেতে পারেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

পাইসেস (১৯ ফেব্রুয়ারি – ২০ মার্চ): এঁরা চিন্তাপ্রবণ হয়ে থাকেন। স্বপ্ন দেখতে ভালবাসেন। তাই এমন একজন সঙ্গী প্রয়োজন যিনি আপনার নিজের জগৎ থেকে বেরিয়ে আসার জন্য অপেক্ষা করবে। আপনার বিয়ের সময় আপনিই সবচেয়ে ভাল বুঝতে পারবেন। তবে ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নেবেন। কারণ ঠকার সম্ভাবনা প্রবল।আর জীবন তো একটাই!