এবার বাজারে এলো ব্লুটুথ-সমর্থিত স্মার্ট কনডম

আই.কন নামের একটি স্মার্ট কনডম বাজারে এনেছে ব্রিটিশ কনডমস

স্মার্ট ব্যান্ড, স্মার্ট ওয়াচের মতন শরীরে পরার উপযুক্ত বিভিন্ন যন্ত্রের পর এবার ব্রিটিশ কনডমস বাজারে ছেড়েছে ব্লুটুথ সমর্থিত একটি স্মার্ট কনডম! এর কার্যকারিতা এবং বিভিন্ন ফিচার সম্পর্কে পাঠকদেরকে জানাতে আমাদের এই প্রতিবেদন।













কনডম, তাও আবার স্মার্ট! সাথে আবার ব্লুটুথও আছে। আমি মোটামুটি নিশ্চিত যে লেখার শিরোনাম পড়েই অনেকে হাসতে হাসতে গড়াগড়ি খাচ্ছেন। কিন্তু আসলে কী এই আই.কন নামের স্মার্ট কনডমটি? এটি আপাতদৃষ্টিতে ছোট একটি গোলাকার যন্ত্র যেটা বিশেষভাবে পুরুষাঙ্গের পরার জন্যে তৈরি করা হয়েছে।

কনডম মানেই জন্ম নিয়ন্ত্রণের আর যৌনাঙ্গের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধের একটি জিনিস। আসলেই কী তাই? যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান বৃটিশ কনডমসের তৈরি করা এই কনডমটি অনেক কিছু করতে পারলেও জন্ম নিয়ন্ত্রণ বা যৌনবাহিত রোগ প্রতিরোধের বেলায় কিছুই করতে পারে না। করবেই বা কীভাবে? এটি যে শুধুমাত্র একটা রিং! সাধারণ কনডমের বিকল্প হিসেবে তাই ভুলেও কেউ এটিতে ব্যবহার করতে যাবেন না যেনো!













জন্ম নিয়ন্ত্রণের বেলায় পুরোপুরি ব্যর্থ হলেও এটি করতে পারে আরো অনেক কিছুই। যৌনক্রিয়া চলাকালীন আপনার গতি নির্ণয়, আপনি কোন পজিশন বেশি ব্যবহার করছেন সেটা বের করা

, যৌনক্রিয়ার ফলে আপনার কত ক্যালোরি বার্ন হলো, আপনার যৌনাঙ্গের তাপমাত্রা এবং পরিশেষে মোট কতবার যৌনক্রিয়া করেছেন সেটা বলতে পারে এই কনডম। ওহ!

বলতেতো ভুলেই গিয়েছি, এই কনডমে রয়েছে ব্লুটুথ সুবিধা। ফলে, নির্ণয় করা সব তথ্য আপনি ব্লু টুথের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন আপনার ফোনে। চাইলে সেটা শেয়ার করা যাবে অন্যান্য আই.কন ব্যবহারকারীদের সাথেও।

নির্মাতারা এই স্মার্ট কনডমের মূল্য নির্ধারণ করেছে ৫৯.৯৯ পাউন্ড। সাথে মিলবে এক বছরের ওয়ারেন্টি। মাইক্রোইউএসবি-র মাধ্যমে চার্জ দেওয়া যাবে এই ডিভাইসটিকে।







এক চার্জে এই স্মার্ট কনডম ব্যবহার করা যাবে আট ঘণ্টা পর্যন্ত যৌন মিলনে। গত বছরের জুলাইতে বাজারে ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে ইতোমধ্যে নিজেদের ওয়েবসাইটেই আই.কন স্মার্ট কনডম বিক্রি করছে ব্রিটিশ কনডমস।

ফিচার ছবি: ব্রিটিশ কনডমস