শুক্রবার থেকে বৃষ্টি নিয়ে আসছে চরম দুঃসংবাদ

শুক্রবার থেকে বৃষ্টি- দেশজুড়ে আগামী শুক্রবার (৮জুন) থেকে টানা ৩/৪দিন প্রবল বৃষ্টিপাত হতে পারে। দক্ষিণ-পশ্চিম থেকে বয়ে যাওয়া মৌসুমি বায়ূর প্রভাবে সারাদেশে ভারি বৃষ্টিপাতের প্রবণতা আরও বাড়তে পারে। এ অবস্থা আরও ৩ থেকে ৪ দিন অব্যাহত থাকতে পারে।

আবহাওয়াবিদ অাবদুর রহমান খান জানান.সারা দেশে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় আরও কয়েক দিন দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রাজধানীসহ দেশের মধ্যাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চল বিশেষ করে ফেনী, কুমিল্লা মুন্সীগঞ্জ,মানিকগঞ্জ, গাজীপুর ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, খুলনা, বাগেরহাট ও বরিশাল এলাকায় ভারি বৃষ্টিপাত ও ছোট আকারের কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে। একই সঙ্গে বিজলী চমকানোসহ বজ্রপাতের সম্ভাবনাও রয়েছে।

তিনি জানান,আকাশে পশ্চিমা জেট ফরমেসন প্রায় নিস্ক্রিয় হয়ে পড়ছে,আর কালবৈশাখি ঝড়ের প্রধান শক্তি ছিলো এই পশ্চিমা জেট ফরমেসন। পশ্চিমা জেট ফরমেসন প্রভাব কমে যাওয়া কালবৈশাখির প্রবণতাও কমে গেছে। দক্ষিণ পশ্চিম মৌসূমী বায়ু জোরদার হয়ে শুরু হবে বর্ষা।

মঙ্গলবার সকালে ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় মাঝারী থেকে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। এ সময় রংপুর ও রাজশাহী বিভাগে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা কম থাকলেও ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যে তা বাড়তে পারে বলেও জানান তিনি। সকাল ৬টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ ফেনীতে ৫১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এছাড়া সন্দ্বীপ ৪১ মিলিমিটার ও ঢাকায় ২৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা, বরিশাল চট্টগ্রাম, ঢাকা, ও সিলেট বিভোগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ, বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া এবং বিদ্যুৎ চমকানোসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে। এছাড়া সারা দেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল যশোরে ৩৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, আজ সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রয়েছে ভোলা ২৩ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯৪ শতাংশ।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ূ চট্টগ্রাম, সিলেট, ময়মনসিংহ ও ঢাকা, ও বিভাগে বিস্তার লাভ করেছে। আবহাওয়ার অবস্থা দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ূ আরও অগ্রসর হওয়ার অনুকূলে রয়েছে। পশ্চিমা লঘুচাপ ভারতের বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।