অভিশপ্ত ‘নো বল’ তাড়া করে বেরাচ্ছে টিম ইন্ডিয়াকে

দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে টিম ইন্ডিয়া। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের ওয়ানডে সিরিজে এরই মধ্যে নিজেদের দাপট দেখিয়েছে কোহলির দল। তবে সমস্যা একটাই, তা হল ‘নো বল’। অভিশপ্ত এই নো বল তাড়া করে বেরাচ্ছে টিম ইন্ডিয়াকে। পরপর দু’টি বড় আইসিসি টুর্নামেন্টের পর দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের চতুর্থ ম্যাচেও নো বলই ডোবাল সফরকারীদের। ডেভিড মিলারের উইকেট পেয়েও নো বলের খেসারত দিতে হল যুজবেন্দ্র চাহালকে।

২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে দু-দুটো নো বল ম্যাচ তুলে দিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের হাতে। প্রথমবার অশ্বিনের বলে আউট হওয়ার বেঁচে যান সিমন্স। পরে হার্দিক পান্ডিয়ার নো বল। ম্যাচে জেতানো ইনিংস খেলেন সিমন্স।

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যান ফখর জামানের ক্যাচ তালুবন্দি করেছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। তবে বুমরা নো বল করায় বেঁচে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান। তখন ৩ রানে ব্যাট করছিলেন ফকর। সেখান থেকে ১১৪ রান করেন পাক ব্যাটসম্যান। ট্রফি হাতছাড়া হয়েছিল টিম ইন্ডিয়ার।

শনিবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজে চতুর্থ ম্যাচ জিতলেই প্রথমবার সে দেশে সিরিজ জয় করত টিম ইন্ডিয়া। ৭ রানের মাথায় বোল্ড হয়েছিলেন মিলার। তবে সেই বলটি বৈধ বল না হওয়ায় ক্রিজে থেকে যান দক্ষিণ আফ্রিকার এই ব্যাটসম্যান। সেখান থেকে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলেন মিলার। দক্ষিণ আফ্রিকাকে হোয়াইটওয়াশের স্বপ্নও শেষ হয়।